জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন ।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি মারা -মালয়েশিয়ার মধ্যে সমঝোতা স্মারক সাক্ষরিত

২১শে ডিসেম্বর ২০২০ইং তারিখে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি মারা -মালয়েশিয়ার মধ্যে উপাচার্য মহোদয়ের কার্যালয়ে ভার্চুয়াল সভায় এক সমঝোতা স্মারক সাক্ষরিত হয়।জাককানইবির পক্ষে স্বাক্ষর করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) কৃষিবিদ ড. মোঃ হুমায়ূন কবীর ও ইউআইটিএম এর পক্ষে স্বাক্ষর করেন প্রতিষ্ঠানটির রেক্টর প্রফেসর এস আর ড. মোঃ ইউসুফ হামিদ।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস -২০২০ উদযাপন

যথাযত মর্যাদা ও উৎসাহ উদ্দীপনার সাথে দিনব্যাপী নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মহান বিজয় দিবস -২০২০ উদযাপন করা হয়েছে।এদিন প্রথমে সকালে প্রশাসনিক ভবনের সামনে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে ” চির উন্নত মম শির ” ও বঙ্গ বন্ধুর ভাস্কর্যে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কর্মসূচীতে নেতৃত্ব দেন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস-২০২০ পালিত

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযত মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যের সাথে দিন ব্যাপি নানা কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস-২০২০ পালন করা হয়েছে। এদিন প্রথমে সকালে প্রশাসনিক ভবনের সামনে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে ” চির উন্নত মম শির ” ও বঙ্গ বন্ধুর ভাস্কর্যে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কর্মসূচীতে নেতৃত্ব দেন।

উল্লেখ্য শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে, বাদযোহর বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় ত্রিশাল মুক্ত দিবস পালিত।

৯ ডিসেম্বর, ১৯৭১ সালের এই দিনে রক্তক্ষয়ী মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে শত্র‌ু মুক্ত হয় ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল উপজেলা। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযোগ্য মর্যাদায় ত্রিশাল মুক্ত দিবস পালিত হয়। এদিন প্রথমে সকালে প্রশাসনিক ভবনের সামনে জাতীয় সঙ্গীতের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে ” চির উন্নত মম শির ” ও বঙ্গ বন্ধুর ভাস্কর্যে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান ত্রিশাল মুক্ত দিবসে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে আত্নত্যাগকারী ত্রিশালের সকল বীর যোদ্ধা ,শহীদ, বীরাঙ্গনা মা-বোনদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন যুক্ত হল দুইটি শিক্ষার্থী বাস এবং একটি শিক্ষক বাস।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী উদযাপন

জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের  কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচী উদযাপন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয় কেম্পাস এর বিভিন্ন স্থানে ৭৪ টি ফলজ, বনজ ও  ঔষধি গাছের চারা লাগানো হয়। এছাড়া দুস্থদের মধ্যে অর্থ বিতরণ এবং কেন্দ্রীয় মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দশলক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর

করোনা ও বন্যার প্রভাব মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দশলক্ষ টাকার চেক হস্তান্তর করা হয়।
বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি দলে ছিলেন-
১. প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান, মাননীয় উপাচার্য
২. কৃষিবিদ ড. মো. হুমায়ুন কবীর, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার
৩. জনাব মো. নজরুল ইসলাম, সভাপতি, শিক্ষক সমিতি
৪. জনাব মো. জাকিবুল হাসান রণি, সাধারণ সম্পাদক, কর্মকর্তা পরিষদ, জাককানইবি।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যথাযত মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত

জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর ৪৫তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে জাককানইবিতে সকালে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করন ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। পরে বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এসময় মাননীয় উপাচার্য প্রফেসর ড. মোস্তাফিজুর রহমান, বিভিন্ন অনুসদের ডীন, রেজিস্ট্রার ড. মো. হুমায়ূন কবীর ,প্রক্টর, শিক্ষক সমিতির সভাপতি ,ছাত্র উপদেস্টা, কর্মকর্তা ও করমচারী পরিষদের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক বৃন্দ, জাককানইবি শাখা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ সহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

পরে শোক র‍্যালি শেষে নব নির্মিত বংবন্ধুর ভাস্কর্যে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয় ।এরপর এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা ও অনলাইনে মুজিব বর্ষে জাতীয় শোক দিবসঃ আমার বংগবন্ধু শীর্ষক রচনা প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

 

বি দ্রঃ করোনা মহামারীর করনে সকল কার্যক্রম স্বাস্থ্যবিধি মেনে করা হয়।